The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২

বড় ভাইয়ের ছুরিকাঘাতে প্রাণ হারালো ছোট ভাই

বড় ভাইয়ের ছুরিকাঘাতে প্রাণ হারালো ছোট ভাই

কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার পৌর এলাকার উত্তর ভিংলাবাড়ি হাশেম ব্যাপারী বাড়িতে বড় ভাইয়ের ছুরিকাঘাতে ঘটনাস্থলেই ছোট ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে

বৃহস্পতিবার দুপুর ২টা ৩০ মিনিটের দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহতের নাম জাহাঙ্গীর আলম (৩০)।

তিনি কোম্পানীগঞ্জ সাফল্য সমবায় সমিতি নামে একটি এনজিওতে চাকরি করতেন এবং উত্তর ভিংলাবাড়ি এলাকার মৃত আবুল হাশেম ব্যাপারী ছেলে। এ ঘটনার পর তার বড় ভাই আলমগীর হোসেন পলাতক রয়েছে। 

প্রতিবেশী মো. জালাল উদ্দিন ও প্রত্যাক্ষদর্শী মো. রুবেল জানান, নিহত জাহাঙ্গীর আলমের বাবা আবুল হাশেম ব্যাপারী কোম্পানীগঞ্জ বাজারে পেয়াজের ব্যবসা করতেন। তিনি জীবিত থাকা অবস্থায় পাশ্ববর্তী ব্যবসায়ী আবদুর রহিম নামে এক ব্যক্তির কাছে সাড়ে ৫ লক্ষ টাকা পাওনা ছিলেন।

গত ৮ মাস আগে আবুল হাশেম ব্যাপারী মারা যাওয়ার পূর্বে পাওনা সাড়ে ৫ লক্ষ টাকা দুই ভাইয়ের মধ্যে সমান ভাবে ভাগ করে পরিশোধ করতে বলে যান আবদুর রহিমকে। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পাওনা টাকা পরিশোধ করবেন বলেও আবদুর রহিম সবাইকে আশ্বাস দেন। পরে বড় ভাই আলমগীর হোসেন টাকা পরিশোধের নির্দিষ্ট সময়ের পূর্বে গত সপ্তাহে দেনাদার আবদুর রহিমের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা অগ্রীম নিয়ে আসেন। এ খবর পেয়ে ছোট ভাই জাহাঙ্গীর আলম বড় ভাই আলমগীর হোসেনের কাছ পাওনা আদায়ের ৫০ হাজার টাকা থেকে ২০ হাজার টাকা তাকে দিতে চাপ দেন। ওই ২০ হাজার টাকা নিয়ে গত দুইদিন ধরে দুই ভাইয়ের মধ্যে বিভিন্ন সময়ে কথা কাটাকাটি ও তর্ক চলে আসছিলো।

পরে বৃহস্পতিবার দুপুরে বড় ভাইয়ের কাছে ফের ২০হাজার টাকা দিতে চাপ প্রয়োগ করেন করেন ছোট ভাই জাহাঙ্গীর আলম। আলমগীর হোসেন টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে এনিয়ে দুই ভাইয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে বড় ভাই আলমগীর হোসেন ঘর থেকে ছুরি এনে ছোট ভাই জাহাঙ্গীর আলমের পেটে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যান। 

এতে ঘটনাস্থলেই জাহাঙ্গীর আলম মারা যান। পরে প্রতিবেশীরা দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। 

এ বিষয়ে দেবিদ্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কমল কৃষ্ণ ধর বলেন, ‘ঘটনাটি প্রকাশ্য দিবালোকে ঘটেছে। খবর শুনে ঘটনাস্থলে গিয়ে সুরতহাল রিপোর্ট শেষে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে ঘাতক আলমগীর হোসেন পলাতক রয়েছে।