The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২

  • ‘দেশে আর তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন হবে না’ প্রধানমন্ত্রীর জন্যই সারাদেশে শান্তির সুবাতাস বইছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ন্যাটোতে যোগ দেওয়ার ‘ত্বরিৎ’ আবেদন করেছে ইউক্রেন বিএনপির বক্তব্য ও রডের মাথায় জাতীয় পতাকা একসূত্রে গাঁথা: তথ্যমন্ত্রী লঘুচাপ সৃষ্টির পূর্বাভাস, বাড়তে পারে বৃষ্টি পুতিনকে ‘রক্তপিপাসু’ বললেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট পাবনায় কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে যুবককে হত্যা দুর্গাপূজার সাথে মিশে আছে চিরায়ত বাংলার ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি: রাষ্ট্রপতি মোল্লাহাটে শিশু কিশোর কিশোরী কার্যালয়ের যুগপূর্তি অনুষ্ঠিত বিএনপির মিথ্যাচারে দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি হচ্ছে: কৃষিমন্ত্রী
  • ‘গণতন্ত্র মঞ্চ’ নামে নতুন জোটের আত্মপ্রকাশ, কর্মসূচি ঘোষণা

    ‘গণতন্ত্র মঞ্চ’ নামে নতুন জোটের আত্মপ্রকাশ, কর্মসূচি ঘোষণা
    সংগৃহীত

    গণতন্ত্র মঞ্চ’ নামে সাত দলীয় নতুন একটি রাজনৈতিক জোট গঠন হয়েছে। আগামী ১১ আগস্ট এ জোটের প্রথম কর্মসূচি ঢাকায় পালন করা হবে। ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আজ সোমবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেওয়া হয়।

    জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডির সভাপতি আ স ম আব্দুর রব ‘গণতন্ত্র মঞ্চ’ জোটের ঘোষণা দেন।

    নাগরিক ঐক্য, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি, জেএসডি, ভাসানী অনুসারী পরিষদ, রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলন, গণসংহতি আন্দোলন ও গণঅধিকার পরিষদের সমন্বয়ে নতুন জোট গঠন করা হয়েছে।

    নতুন জোটের আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানে জেএসডির সভাপতি আ স ম আব্দুর রব বলেন, ‘ষড়যন্ত্র নয়, ওপেন ঘোষণা করে সরকারবিরোধী আন্দোলন করবে গণতন্ত্র মঞ্চ। সরকারবিরোধী লড়াইয়ের বিকল্প নেই।’

    জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠায় সংগ্রামে অংশ নিতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান আ স ম আব্দুর রব।

    গণতন্ত্র মঞ্চের রূপরেখা তুলে ধরেন নাগরিক ঐক্যের  সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না। পাশাপাশি আগামী ১১ আগস্ট রাজপথে প্রথম কর্মসূচি ঘোষণা দেন তিনি।

    জোটের রূপরেখায় বলা হয়—আগামী নির্বাচন সামনে রেখে জনগণের ভোটের অধিকার নিশ্চিত করা এবং অবাধ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের জন্য বর্তমান সরকারকে পদত্যাগ করতে হবে। জাতীয় সংসদ বিলুপ্ত ঘোষণা করতে হবে এবং একটি রাজনৈতিক ঐক্যমতের ভিত্তিতে গঠিত অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে হবে।

    রূপরেখায় আরও বলা হয়—‘রাষ্ট্রের তিন অঙ্গ—সংসদ, নির্বাহী বিভাগ ও বিচার বিভাগের মধ্যে ক্ষমতার ভারসাম্য প্রতিষ্ঠা ও সরকারের জবাবদিহির কার্যকরী ব্যবস্থা গড়ে তোলা।’

    ‘সংখ্যানুপাতিক নির্বাচন ও দ্বিকক্ষবিশিষ্ট পার্লামেন্ট ব্যবস্থার জন্য প্রয়োজনীয় সাংবিধানিক সংস্কার। একই সঙ্গে ফেডারেল পদ্ধতির সরকার ব্যবস্থা বিষয়ে আলোচনার জন্য জাতীয় কমিশন গঠন।’

    ‘বিচার বিভাগের পরিপূর্ণ স্বাধীনতা নিশ্চিত করা, নিম্নআদালতকে নির্বাহী বিভাগ থেকে সম্পূর্ণ আলাদা করে তার পরিচালনা ও তদারকি উচ্চ আদালতের হাতে ন্যস্ত করা, প্রধান বিচারপতিসহ বিচারক নিয়োগ ও পদোন্নতির বিষয়ে সুনির্দিষ্ট নীতিমালা প্রণয়ন।’

    ‘গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিশ্চিত করা।’

    ‘মুক্তিযুদ্ধের অঙ্গীকার সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক ন্যায়বিচারের নীতিতে রাষ্ট্রের সকল নাগরিকের জীবন ও মর্যাদা নিশ্চিত করা।’

    ‘দেশে ব্যাপক কর্মসংস্থান ও অর্থনীতির টেকসই প্রকৃতিবান্ধব ভিত্তি প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে সব জনগণের জন্য সমান সুযোগের নিশ্চয়তা তৈরি।’

    জোটের আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না, গণঅধিকার পরিষদের রেজা কিবরিয়া, নুরুল হক নুর, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাইফুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


    সর্বশেষ

    আরও পড়ুন