The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

‘পারমাণবিক হামলা হলে জাতিসংঘ থাকবে না’

‘পারমাণবিক হামলা হলে জাতিসংঘ থাকবে না’
জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস। ছবি: সংগৃহীত

কয়েক দশক পর পারমাণবিক সংঘর্ষে ঝুঁকি আবারও ফিরে এসেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তেনিও গুতেরেস। আর তাই পারমাণবিক শক্তিধর রাষ্ট্রগুলোকে প্রথমেই পরমাণু অস্ত্রের ব্যবহার না করার প্রতিশ্রুতি দেওয়ারও আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

ইউক্রেনের জাপোরিঝিয়া পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্রে রাশিয়ার আবারও হামলার খবর সামনে আসার পর সোমবার (৮ আগস্ট) এই মন্তব্য করেন তিনি। সোমবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

জাপানের টোকিওতে মহাসচিব গুতেরেস বলেছেন, পারমাণবিক  যুদ্ধ শুরু হলে কোনো কিছু করার জন্য ‘সম্ভবত জাতিসংঘই থাকবে না।’

জাপানের এক সাংবাদিক ইউক্রেনে রাশিয়ার সম্ভাব্য পারমাণবিক আক্রমণ সম্পর্কে জিজ্ঞেস করলে এমন মন্তব্য করেন গুতেরেস। 

তিনি বলেছেন, আমার বিশ্বাস যদি পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করা হয় , সম্ভবত জাতিসংঘ থাকবে না, কোনো কিছু করতে। 

তিনি আরও বলেছেন,  কোনো ধরনের পারমাণবিক যুদ্ধ মানে ‘বিশ্ব ধ্বংস’ হবে।
এ ব্যাপারে পারমাণবিক শক্তিধর দেশগুলোকে আক্রমণ করার মানসিকতা থেকে দূরে থাকতে হবে এবং অপারমাণবিক দেশগুলোকে পারমাণবিক শক্তিধর দেশগুলোকে হুমকি দেওয়া থেকে দূরে থাকতে হবে। 

জাতিসংঘের মহাসচিব আরও বলেছেন, এটি পরিস্কার যদি কেউ প্রথমবারের মতো পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করে তাহলে কোনো পারমাণবিক যুদ্ধ থাকবে না (যুদ্ধ করার মতো শক্তি থাকবে না)।

এদিকে গত সপ্তাহে জাপানে নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত মিখাইল গালুজিন পারমাণবিক অস্ত্র নিয়ে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে জানান, ইউক্রেনে রাশিয়ার পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করার কোনো ইচ্ছা নেই।

তিনি জানিয়েছেন, বিশ্বে একবারই পারমাণবিক অস্ত্রের ব্যবহার হয়েছে। সেটি করেছে যুক্তরাষ্ট্র। তারা জাপানের হিরোশিমা এবং নাগাসাকির মানুষের ওপর আসলে পারমাণবিক অস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছিল।