The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২

  • ‘দেশে আর তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন হবে না’ প্রধানমন্ত্রীর জন্যই সারাদেশে শান্তির সুবাতাস বইছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ন্যাটোতে যোগ দেওয়ার ‘ত্বরিৎ’ আবেদন করেছে ইউক্রেন বিএনপির বক্তব্য ও রডের মাথায় জাতীয় পতাকা একসূত্রে গাঁথা: তথ্যমন্ত্রী লঘুচাপ সৃষ্টির পূর্বাভাস, বাড়তে পারে বৃষ্টি পুতিনকে ‘রক্তপিপাসু’ বললেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট পাবনায় কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে যুবককে হত্যা দুর্গাপূজার সাথে মিশে আছে চিরায়ত বাংলার ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি: রাষ্ট্রপতি মোল্লাহাটে শিশু কিশোর কিশোরী কার্যালয়ের যুগপূর্তি অনুষ্ঠিত বিএনপির মিথ্যাচারে দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি হচ্ছে: কৃষিমন্ত্রী
  • নিখোঁজের দুই বছর পর মাটি খুঁড়ে যুবকের কঙ্কাল উদ্ধার, আটক ৫

    নিখোঁজের দুই বছর পর মাটি খুঁড়ে যুবকের কঙ্কাল উদ্ধার, আটক ৫

    শেখ শাহিনুর ইসলাম শাহিন, মোল্লাহাট (বাগেরহাট) প্রতিনিধি: বাগেরহাটের মোল্লাহাটে নিখোঁজের দুইবছর পর মাটি খুঁড়ে এক যুবকের কঙ্কাল উদ্ধার করা হয়েছে।

    ডেকে নিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর ওই যুবকের মৃতদেহ মাটি চাপা দিয়ে রাখা ছিল বলে পুলিশ জানায়। হত্যার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে এর আগে বৃহস্পতিবার ভোরে পুলিশ পাঁচজনকে আটক করে।

    আটকরা হলেন-মোস্তফা চৌধুরী ছেলে মো.হোসাইন চৌধুরী (৩৯) এনামুল ফকিরের ছেলে রুহুল আমিন ফকির (২৭), হেদায়েত চৌধুরীর ছেলে শহিদুল চৌধুরী (৩০) ইউসুফ চৌধুরীর ছেলে মো. নাদিম চৌধুরী (৩২), এবং আবু মোল্লার ছেলে মো, জুয়েল মোল্লা (৩৪) এদের প্রত্যেকের বাড়ি শাসন গ্রামে।

    ২০২০ সালের ২৮ আগস্ট সন্ধ্যায় মোবাইল ফোন করে রানা শরীফকে ডেকে নেয় তার গ্রুপের সদস্যরা। ফোন পেয়ে সাথীদের সাথে দেখা করতে যায় রানা। এর পর থেকে আর রানাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিলনা। অনেক খুজাখুজির পর ছেলের সন্ধান না পেয়ে রানার বাবা আহম্মেদ শরীফ ওরফে বাচ্চু ওই বছর ৪ অক্টোবর মোল্লাহাট থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। ডায়েরির সুত্র ধরে শুরু হয় পুলিশের তদন্ত। প্রযুক্তির ব্যবহার আর গোপন সুত্রে খবর পেয়ে পুলিশ বৃহস্পতিবার ভোরে মোল্লাহাট উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে সন্দেহজন ভাবে পাঁচজনকে আটক করে। তাদের স্বীকারোক্তি ও দেখানো মতে বৃহস্পতিবার দুপুরে মোল্লাহাট উপজেলার শাসন গ্রাম থেকে মাটি খুঁড়ে পুলিশ ওই যুবকের দেহাবশেষ উদ্ধার করে। পুলিশ বলছে উদ্ধার করা ওই কঙ্কাল দুইবছর আগে নিখোঁজ রানা শরীফের।  খবর পেয়ে এলাকার বিভিন্ন বয়সের নারী-পুরুষ সেখানে ভিড় জমায়। নিখোঁজ ছেলে কঙ্কাল উদ্ধারের পর বারবার মুচ্ছা যাচ্ছিল তার মা ও স্বজনরা।  নিহত রানার একজোড়া স্যান্ডেল, তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন এবং মাটি খোড়ার কাজে ব্যবহৃত একটি কোদাল উদ্ধার করেছে পুলিশ।

    পুলিশ বলছে, যারা এই হত্যাকান্ডে জড়িতদের তাদের সাথে রানা শরীফের এক সময় সখ্যতা ছিল এবং তারা একই গ্রুপের সদস্য। এরা সবাই মাদক সেবনকারি এবং কেউ কেউ মাদককারবারি।

    নিহত রানা শরীফ বাগেরহাট জেলার মোল্লাহাট উপজেলার শাসন গ্রামের আহম্মেদ শরীফ ওরফে বাচ্চুর ছেলে। রানা শরীফ ইজিবাইকে যাত্রী পরিবহন করতেন। রানার স্ত্রী ও দুই বছর বসয়ী একটি মেয়ে রয়েছে।

    রানার মা খুরশিদা বেগম বলেন, অপেক্ষায় ছিলাম ছেলে জীবিত অবস্থায় বাড়ি ফিরে আসবে। কিন্ত পুলিশ মাটি খুঁড়ে ছেলের কঙ্কাল উদ্ধার করেছে। ছেলেকে যারা হত্যা করেছে তাদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার চাই

    স্থানীয়রা বলেন, যারা রানাকে হত্যার পর গর্ত খুড়ে মাটি চাপা দিয়ে রেখে ছিল তাদের দৃষ্টান্তুমূলক শাস্তি না হলে এলাকায় এধরণের ঘটনা ঘটতে থাকবে।

    মোল্লাহাট থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোমেন দাশ বলেন, আর্থিক লেনদেন নিয়ে একই গ্রামের জুয়েলের সাথে রানার বিরোধ হয়। ওই বিরোধের জের ধরে তারা রানাকে ডেকে নিয়ে প্রথমে তাকে ইয়াবা সেবন করিয়ে নেশাগ্রস্ত করে। এর পর তারা পাঁচজনে মিলে হাত-পা চেয়ে ধরে এবং শ্বাসরোধ করে তাকে হত্যা করে। এর পর মৃতদেহ বস্তায় ভর্তি করে গর্ত করে মাটি চাপা দিয়ে রাখে।


    সর্বশেষ

    আরও পড়ুন