The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২

নতুন কোচের নতুন নিয়মে বেকায়দায় রোনালদো!

নতুন কোচের নতুন নিয়মে বেকায়দায় রোনালদো!

পর্তুগিজ সুপারস্টার ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো বিখ্যাত তার গাড়ির প্রতি ভালোবাসার জন্য। তার সংগ্রহে আছে বিশ্বের সব দামী গাড়ী। যে গুলো নিয়ে প্রায়ই তিনি বেড়িয়ে পরেন রাস্তায়। কয়েকদিন আগে তার গাড়ি চালিয়ে অনুশীলনে আসার একটি ছবি ভাইরাল হয়। যেখানে দেখা যায়  দামী গাড়ি নিয়ে বডিগার্ড সঙ্গে নিয়ে ম্যানইউর অনুশীলনে আসছেন তিনি। তবে রোনালদোকে তার বিলাস বহুল গাড়ী নিয়ে আর অনুশীলনে আসতে দেখা না-ও যেতে পারে। কারণ ক্লাবটির নতুন কোচ রাফ রাগনিকের বিষয়টি পছন্দ না!

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বাজে পারফরম্যান্সের দায়ে সম্প্রতি বলির পাঁঠা বানানো হয়েছে প্রধান কোচ ওলে গানার সুলশারকে। তার শূন্যস্থানে নতুন কোচ হিসেবে রালফ রাংনিককে নিয়োগ দিয়েছে রেড ডেভিলসরা। তবে এখনই ডাগ আউটে দাঁড়াচ্ছেন না তিনি। মৌসুম শেষে ম্যানইউর দায়িত্ব নেবেন জার্মান এই কোচ।

তবে পর্তুগীজ যুবরাজকে বিলাসবহুল গাড়ি চালানো থেকে বিরত রাখার সিদ্ধান্ত নিতে পারেন রাংনিক। কারণ হিসেবে বলা হচ্ছ, জার্মান কোচ তার সাবেক ক্লাব লাইপজিগে কোনো খেলোয়াড়কে ড্রাইভিংয়ের অনুমতি দেননি।

বিশ্বের নামিদামি সব ব্র্যান্ডেরই গাড়ি আছে রোনালদোর। প্রায়শই নিত্য নতুন মডেলের গাড়ি চালাতে দেখা যায় তাকে। এই মৌসুমে কুড়ি মিলিয়ন ইউরো মূল্যে ফেরারির একটি গাড়ি কিনেছেন তিনি। পর্তুগীজ যুবরাজের গ্যারেজে শোভা পাচ্ছে এমন অনেক গাড়ি। যা নিজে চালিয়ে অনুশীলনে আসেন তিনি।

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে যোগ দিয়ে শিষ্যদের এই ব্যাপারে আপত্তি তুলতে পারেন ‘কড়া শিক্ষক’ হিসেবে খ্যাত রাংনিক। মঙ্গলবার রাতে স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিক মার্কা জানায়, লাইপজিগের মতো ম্যানইউতেও খেলোয়াড়দের গাড়ি চালানোর ওপর নিষেধাজ্ঞা দিতে পারেন জার্মান কোচ। সব খেলোয়াড়কে ক্লাবের নিজস্ব গাড়ি ও ড্রাইভার ব্যবহার করা লাগতে পারে।

রোনালদোর বয়স এখন ৩৬। এই বয়সেও কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছেন তিনি। যার প্রভাব দেখা যাচ্ছে মাঠের পারফরম্যান্সে। এই মৌসুমে এখন পর্যন্ত ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সবচেয়ে সফল ফুটবলার রোনালদো। ক্লাবের অবস্থা নাজুক হলেও মাঠে এবং বাইরে সময়টা ভালোই উপভোগ করছেন তিনি।

অন্য সব ক্লাবের মতো এখানেও ব্যক্তিগত জীবন যাপনে স্বাধীনতা পাচ্ছেন তিনি। ভারপ্রাপ্ত কোচ মাইকেল ক্যারিকেরও তাতে কোনো আপত্তি নেই। স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিকের আশঙ্কা সত্যি হলে খুব বেশি দিন আর এই স্বাধীনতা পাবেন না রোনালদো। বিশেষ করে শখের গাড়ী চালানোর ক্ষেত্রে!