The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২

নাট্যাচার্য সেলিম আল দীনের প্রয়াণ দিবস আজ

নাট্যাচার্য সেলিম আল দীনের প্রয়াণ দিবস আজ
ছবি: সংগৃহীত

বাংলা নাটকে নতুন ধারার প্রবর্তক নাট্যাচার্য ড. সেলিম আল দীনের ১৪তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ শুক্রবার। তিনি ২০০৮ সালের ১৪ জানুয়ারি ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে কেন্দ্রীয় মসজিদের কাছে তাকে সমাহিত করা হয়।

ঔপনিবেশিক সাহিত্যধারার বিপরীতে গিয়ে নাটককে আবহমান বাংলার গতিধারায় ফিরিয়ে এনেছিলেন তিনি। বাংলাদেশ গ্রাম থিয়েটারের স্বপ্নদ্রষ্টা এই মহারথী। তিনি ঢাকা থিয়েটারেরও প্রাণপুরুষ।

এ প্রবাদ-পুরুষের প্রয়াণ দিবস উপলক্ষে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগ নানা অনুষ্ঠান আয়োজন করেছে।

দিনের কর্মসূচির শুরুতেই অমর একুশ ভাস্কর্যের চত্বর থেকে সকাল সাড়ে ১০টায় একটি স্মরণযাত্রা নিয়ে সেলিম আল দীনের সমাধিস্থলে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হবে। এতে বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ইস্রাফিল আহমেদ, শিক্ষক-শিক্ষার্থী, বিভিন্ন নাট্য-সংগঠন, দেশের সংস্কৃতি অঙ্গনের ব্যক্তিবর্গ, সেলিম আল দীনের আত্মীয়-স্বজন প্রমুখ অংশগ্রহণ করবেন।

দুপুর সাড়ে ১২টায় অনলাইনে “টেলিভিশন মাধ্যমে সেলিম আল দীন: কর্মপরিধি ও আধেয় পার্যলোচনা” শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় জহির রায়হান মিলনায়তনের থিয়েটার ল্যাব-৩ এ ইউসুফ হাসান অর্কের নির্দেশনায় এবং সৈয়দ শামসুল হক রচিত নাটক “জলপলকের গান” পরিবেশিত হবে।

১৯৪৯ সালের ১৮ আগস্ট ফেনীর সোনাগাজী উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন কালজয়ী এই মহাপুরুষ। ১৯৭৪ সালে তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের প্রভাষক হিসেবে যোগদান করেন। তার হাত ধরেই ১৯৮৬ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ে নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের যাত্রা শুরু হয়।

সেলিম আল-দীনের জন্ম ফেনীতে হলেও বাবার চাকরির সূত্রে ফেনী, চট্টগ্রাম, সিলেট, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও রংপুরের বিভিন্ন স্থানে তার শৈশব ও কৈশোর কেটেছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে এমএ ডিগ্রি নেওয়ার পর কর্মক্ষেত্র হিসেবে বেছে নেন শিক্ষকতাকে। এর পর থেকেই তার কর্মক্ষেত্র বিস্তৃত হতে থাকে।

একদিকে সৃজনশীলতার ভুবন আলোকিত করে রাখেন তার নতুন নতুন ভিন্নমাত্রিক রচনা-সম্ভার দিয়ে, অন্যদিকে শিল্পের একাডেমিক ও প্রাতিষ্ঠানিক ভিত্তির জন্য কাজ করে যান সমান্তরালে। শিক্ষকতার পাশাপাশি সারা দেশে নাট্য আন্দোলনকে ছড়িয়ে দিতে ১৯৮১-৮২ সালে গড়ে তোলেন বাংলাদেশ গ্রাম থিয়েটার। এর আগেই শিল্প-সঙ্গী নাট্য-নির্দেশক নাসির উদ্দিন ইউসুফের সঙ্গে যুক্ত হয়ে ঢাকা থিয়েটার প্রতিষ্ঠা করেন। ২০০৮ সালের ১৪ জানুয়ারি রাজধানীর একটি হাসপাতালে তিনি মারা যান।


আরও পড়ুন