The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা শুক্রবার, ২০ মে ২০২২

চুরির অপবাদে কিশোরকে নির্যাতন, আটক ৩

চুরির অপবাদে কিশোরকে নির্যাতন, আটক ৩
সংগৃহীত

পটুয়াখালীর গলাচিপায় চুরির অপবাদ দিয়ে এক কিশোরকে গাছের সাথে শিকলে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। এ নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ভিডিও ফুটেজ দেখে ৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ। 

মধ্যযুগীয় কায়দায় এ নির্যাতনের ঘটনাটি ঘটেছে গলাচিপা উপজেলার সদর ইউনিয়নের বোয়ালিয়া গ্রামে। ৯ মে থেকে ১১ মে রাত পর্যন্ত দফায় দফায় তাকে মারধর করা হয়। 

ঘটনার পর থেকে ওই কিশোর নিখোঁজ রয়েছেন। তাকে এখনও উদ্ধার করা যায়নি। তবে এ ঘটনায় জড়িত থাকার দায়ে তানিয়া, মমতাজ ও শামীমকে আটক করেছে থানা পুলিশ।
  
ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যায়, কিশোর মুন্নাকে একটি গাছের সাথে লোহার শিকলে বেঁধে এক ব্যক্তি তাকে মধ্য যুগীয় কায়দায় মারধর করছেন। এসময় আশপাশের লোকজন দাঁড়িয়ে বিষয়টি দেখছিলেন। 

চুরির অপবাদে মুন্নাকে ধরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে এমন সংবাদ পেয়ে বাড়িতে আসেন মুন্নার মা হাসিনা বেগম। বাড়িতে এসে ছেলেকে খুঁজে পাচ্ছেন না তিনি। 

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, গত সোমবার কিশোর মুন্নার মামার বাসা থেকে ৮৫ হাজার টাকা হারিয়ে যায়। ওই টাকা চুরির অপবাদ দিয়ে মুন্নাকে গাছে বেধে নির্যাতন করেন ভগ্নিপতি হজরত আলী। 

ঘটনার পর থেকে মূলহোতা হজরত আলী পলাতক রয়েছেন। নির্যাতনের ঘটনায় ৫ জনকে আসামি করে থানায় মামলা করেন কিশোরের মা হাসিনা বেগম। 

এ বিষয়ে গলাচিপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এম আর শওকত আনোয়ার জানান, নির্যাতিত কিশোরের মা হাসিনা বেগমের অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা হয়েছে। ইতিমধ্যে ৩ জনকে আটক করা হয়েছে।  কিশোর মুন্নাকে উদ্ধারে পুলিশ তৎপর রয়েছে বলে জানান তিনি।


সর্বশেষ