The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২

  • ‘দেশে আর তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন হবে না’ প্রধানমন্ত্রীর জন্যই সারাদেশে শান্তির সুবাতাস বইছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ন্যাটোতে যোগ দেওয়ার ‘ত্বরিৎ’ আবেদন করেছে ইউক্রেন বিএনপির বক্তব্য ও রডের মাথায় জাতীয় পতাকা একসূত্রে গাঁথা: তথ্যমন্ত্রী লঘুচাপ সৃষ্টির পূর্বাভাস, বাড়তে পারে বৃষ্টি পুতিনকে ‘রক্তপিপাসু’ বললেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট পাবনায় কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে যুবককে হত্যা দুর্গাপূজার সাথে মিশে আছে চিরায়ত বাংলার ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি: রাষ্ট্রপতি মোল্লাহাটে শিশু কিশোর কিশোরী কার্যালয়ের যুগপূর্তি অনুষ্ঠিত বিএনপির মিথ্যাচারে দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি হচ্ছে: কৃষিমন্ত্রী
  • রনি নিজেই আগুন, ওকে পোড়ায় কার সাধ্য: মীর

    রনি নিজেই আগুন, ওকে পোড়ায় কার সাধ্য: মীর
    ছবি: সংগৃহীত

    অগ্নিদগ্ধ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ‘মীরাক্কেল’খ্যাত কৌতুক অভিনেতা আবু হেনা রনি। তার সুস্থতার জন্য প্রার্থনা করছেন ভক্ত-অনুরাগীরা। সেই দলে যোগ হলেন ওপার বাংলার মীর আফসার আলী।

    মীরাক্কেলের সুবাদেই রনি ও মীরের সখ্যতা। রনির বিষয়টি জানার পর শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি পোস্ট করেছেন মীর। এতে তিনি লিখেছেন, ‘আবু হেনা রনি নিজেই আগুন। ওকে পোড়ায় কার সাধ্য? দোয়া করবেন সবাই।’

    গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের বর্ষপূর্তির অনুষ্ঠানে গ্যাস বেলুন বিস্ফোরণে মারাত্মকভাবে দগ্ধ হন আবু হেনা রনি। এরপর তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসকরা জানান, তিনি শঙ্কামুক্ত নন, তার শ্বাসনালীও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে শঙ্কামুক্ত না হলেও বর্তমানে রনি কথা বলতে পারছেন বলে জানিয়েছেন তার ঘনিষ্ঠজন সুমন্ত সোহেল।

    শনিবার দুপুরে সোহেল বলেন, রনি এখন কথা বলতে পারছেন। তাকে এইচডিইউতে (হাই ডিপেন্ডেন্সি ইউনিট) স্থানন্তর করা হয়েছে। তার শ্বাসনালী দগ্ধ হয়েছে। তবে কতটুকু দগ্ধ হয়েছে- তা জানা যাবে ৭২ ঘণ্টার পর্যবেক্ষণ শেষে। বর্তমানে তিনি চিকিৎসকের পর্যবেক্ষণে রয়েছেন।

    শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইন্সটিটিউটের প্রধান সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন জানান, আবু হেনা রনির দুই হাত, কান ও মুখমণ্ডলের কিছু অংশসহ শরীরের ২৪ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। আর পুলিশ সদস্য জিল্লুর রহমানের দগ্ধ হয়েছে ১৯ শতাংশ।

    তিনি জানান, তাদের দুজনকে সকালে পঞ্চম তলায় অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে ক্ষতস্থানে ড্রেসিং করা হয়েছে। এরপর তাদেরকে ছয় তলার হাই ডিপেন্ডেন্সি ইউনিটে (এইচডিইউ) রাখা হয়।


    সর্বশেষ